শিউলী ইসলাম’এর ব্লগ

জীবন মানেই গল্প কবিতা ছন্দের আলোকিত শক্তি

শিক্ষার গুরুত্ব ও মানবীয় গুনাবলী

 

                                                          

 

চারিদিকে মারামারি, হানাহানি, যুদ্ধ, ঈর্ষা, হিংসা মানবজাতিকে ক্রমান্বয়ে ধ্বংস করে দিয়েছে আমরা নিজেদের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে ধ্বংস করে চলেছি! অথচ এখনও আমরা সেরা জীব বলে নিজেদের দাবি করি! সভ্যতার মেকি খোলস পরার ভান করে আমরা প্রতিনিয়ত অসভ্যতার নিম্ন থেকে নিম্নস্তরে ক্রমান্বয়ে নেমে যাচ্ছি! আমরা সৃষ্টিজগতের প্রানীদেরকে নিম্নস্তরের যত প্রকার অশ্লীলভাষা আছে, তার সবকিছু দিয়েই গালি দিই! কিন্তু তাদের যদি ভাষা থাকত তাহলে তারা কি আমাদের প্রশ্ন করতো না যে – “তোমরা আমাদের যেখানে স্থান দিয়েছো সেস্থান থেকে তোমাদের অবস্থান কি একই কাতারে না অনেক নীচেকিংবা তোমরা শুধুমাত্র মুখের জোরে ভাষাচ্ছলে তোমাদের অযৌক্তিক অন্যায় আবদারগুলো আদায় করে নিয়ে  চিরসুখী হবার ভান করো বা দাবী করো“!

 

           আমার মনে হয় মানুষ নামের প্রানীগুলোর মধ্যে যে বোধ নেই, তা ওদের মধ্যে আছে! কিন্তু ভাষা না থাকার কারনে ওরা তা পুরোপুরি প্রকাশ করতে পারে না! আমরা নির্বিচারে ওদেরকে শুধুমাত্র ঠুনকো বিলাসব্যসন যেমন ওদের চামড়ার ছুতায় ধ্বংস করে, তা গায়ে পরে সভ্যতার বেসুরো সুরে করছি! নিজেরাই যত্রতত্র উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নামে ভাসমান ব্যবসা   খুলে দেদারসে অনবরত বুদ্ধিজীবি,জ্ঞানী তথা সুশীল সমাজএর লেবেল আঁটা মানুষ নামক হাইব্রীড জিএমপ্রানীর জাত বা প্রডাক্টের বাম্পার ফলনে উঠে পড়ে লেগেছি! আমার প্রশ্ন, প্রকৃত মানবীয় যেসব গুনাবলী আমাদের থাকা প্রয়োজন, সেগুলো দিয়ে সাজিয়ে আমরা কি নিজেদের তৈরী করছি?!

 

            আমি মনে করি যে প্রতিটি মানুষের যে মানবীয় গুনাবলী যেমন স্নেহ ভালবাসা ও শ্রদ্ধা আছে ঠিক তেমনি রাগ জেদ হিংসা বিদ্যমান কিন্তু কোন মূহূর্তে কোথায় এবং কতটা প্রয়োগ করলে তা প্রত্যেকের জন্যই মঙ্গল হবে তা একটু বুঝেশুনে করা উচিত হয়ত অনেকেই সেই ব্যাপারটা জানি কিন্তু পরিমানের ব্যাপারে সবাই সন্দিহান আমার কাছে মনে হয়েছে যে সেই পরিমানটা হল সবার সাথে আত্নিক বন্ধন প্রত্যেকের মধ্যে সার্বজনীন যে বন্ধন তা যেন বজায় থাকে সেদিকে নজর দেয়া উচিত

আমি মনে করি মানুষ উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত না হলেও তারা সমাজের কোন ক্ষতি করবে না বা বোঝা হবে না! অতএব প্রথম থেকে জীবনের শেষ মূহূর্ত পর্যন্ত আমাদের নিজেদেরকে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ার চেষ্টা করতে হবে

           

             অচিরেই যে কোনদিন মানুষ নামক প্রানী বিস্মৃতির অতলে বিলীন হয়ে যাবে, তবুও আমরা কি চিরকাল অন্তঃসারশূন্যতার ঠুনকো ফাঁকা কলসি বাজিয়ে যেতেই থাকব?

 

 

 

Advertisements

১ টি মন্তব্য»

  রাশেদ wrote @

আজকের অন্ধকারের সমাজের নেতিবাচক দিক নিয়ে পোষ্ট করার সৎসাহস থাকার জন্য সাধুবাদ জানাই!! ‘সত্য’তেই পরম মুক্তি বা প্রাপ্তি হওয়া সত্তেও আমরা আসল সত্য দূরে থাকুক, সমাজে প্রচলিত সত্যের কাছাকাছি কোন Versionই মেনে নিতে পারিনা!!!আপনি অনেক স্বচ্ছ ভাষায় সত্যটা উপস্থাপন করেছেন। ঠুনকো/সস্তা “ধন্যবাদ” শব্দটি উচ্চারন করে আপনার এ মহৎ সৃষ্টিকে অসম্মান/খাটো করতে চাইনা,
আসলে এ লেখা কোন নির্দিষ্ট সাহিত্যের Genre/কাতারে বন্দী করা যাবে না, এটি simply “মহৎ সৃষ্টি”!!!


মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: